1. shahalom.socio@gmail.com : admin :
  2. ittehadnews24@gmail.com : Ittehad News24 : ইত্তেহাদ নিউজ২৪
শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ০৯:২৬ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
মুন্সিগঞ্জের কামারখোলা খানকায়ে ছালেহীয়া মুহিব্বিয়া দীনিয়া মাদ্রাসা কমপ্লেক্সে জামাতে উলার ছাত্রদের ছবক অনুষ্ঠান ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত বাংলাবাজার খানকায়ে নেছারিয়ায় তা’লিমী জলসা অনুষ্ঠিত Malette Poker Jetons de Poker Boutique en ligne পটুয়াখালীতে প্রফেসর একেএম শহীদুল ইসলাম ট্রাস্ট উদ্যোগে ৪০ এতিম ও দুঃস্থ শিক্ষার্থীকে নগদ অর্থ প্রদান শতাব্দীর ঐতিহ্যবাহী ছারছীনা আলিয়া মাদ্রাসার নতুন অধ্যক্ষ হিসেবে যোগদান করেছেন মাওলানা রূহুল আমিন আফসারী পাথরঘাটা মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাতা কাজী মুনসুর আহমেদ (রহঃ) মৃত্যু বার্ষিকীতে দোয়া ও মিলাদ অনুষ্ঠিত আমল যত বেশি বেশি করবেন আক্বীদা তত মজবুত হবে -ছারছীনার পীর ছাহেব। পটুয়াখালীতে জাতীয় সংসদের নবনির্বাচিত সাংসদ নাজনীন নাহারকে ফুলেল সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত সর্বদা কুরআন ও সুন্নাহ অনুযায়ী আমল করার চেষ্টা করাই আমাদের একমাত্র লক্ষ্য -ছারছীনার পীর ছাহেব। কোস্ট গার্ডকে ত্রিমাত্রিক বাহিনী হিসেবে গড়ে তুলছে সরকার : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা
শিরোনাম
শতাব্দীর ঐতিহ্যবাহী ছারছীনা আলিয়া মাদ্রাসার নতুন অধ্যক্ষ হিসেবে যোগদান করেছেন মাওলানা রূহুল আমিন আফসারী আমল যত বেশি বেশি করবেন আক্বীদা তত মজবুত হবে -ছারছীনার পীর ছাহেব। পটুয়াখালীতে জাতীয় সংসদের নবনির্বাচিত সাংসদ নাজনীন নাহারকে ফুলেল সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত সর্বদা কুরআন ও সুন্নাহ অনুযায়ী আমল করার চেষ্টা করাই আমাদের একমাত্র লক্ষ্য -ছারছীনার পীর ছাহেব। কোস্ট গার্ডকে ত্রিমাত্রিক বাহিনী হিসেবে গড়ে তুলছে সরকার : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ছারছীনা দরবার শরীফের তিনদিনব্যাপি বার্ষিক মাহফিল শুরু নিভে যাওয়া প্রদীপে আলো জ্বেলেছেন প্রফেসর আব্দুর রশীদ টুঙ্গিপাড়ায় জাতির পিতার সমাধিতে জাতীয় প্রেসক্লাবের শ্রদ্ধা অগ্রযাত্রায় খামারিদের অন্তর্ভুক্ত করবে স্মার্ট ফারমার্স কার্ড : প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী আন্দোলন করেই তত্ত্বাবধায়কের দাবি আদায় করব -বিএনপির সেমিনারে মির্জা ফখরুল

বরিশালে বিএনপির গণসমাবেশ : ক্রেতার চাপে খুশি ব্যবসায়ীরা

  • আপডেট করা হয়েছে শুক্রবার, ৪ নভেম্বর, ২০২২
  • ১৪০ বার পড়া হয়েছে

বরিশাল প্রতিনিধি :

কেউ প্রথমবার এসেছেন বরিশাল শহরে, কেউ অনেক দিন পর। বিএনপির সমাবেশ ঘিরে রমরমা বরিশালের ব্যবসা-বাণিজ্য। হাজারো মানুষ শহরের বিভিন্ন প্রান্তে ঘুরে বেড়াচ্ছেন।

কেনাকাটা করছেন। হঠাৎ এমন ক্রেতার চাপ বাড়ায় ব্যবসায়ীরাও খুশি। অন্যদিকে সমাবেশ ঘিরে ব্যানার, ফেস্টুনের ব্যবসাও পেয়েছে নতুন মাত্রা। শহরের কেডিসি এলাকায় তেঁতুলতলা নামে একটা খাবার হোটেল আছে। বরিশালের মানুষ ঘরোয়া এবং ভালো মানের খাবার হিসেবে চেনেন এটাকে। ইলিশ, গরু ভুনা, ভর্তার জন্য বেশ পরিচিতি আছে।

বিএনপির শনিবারের সমাবেশস্থলের কাছেই হোটেলটির অবস্থান। বঙ্গবন্ধু উদ্যান (বেলস পার্ক) থেকে মিনিট পাঁচেকের দূরত্ব। শুক্রবার দুপুরে সেখানে দেখা গেল বসার জায়গা নেই।

বাইরেও দাঁড়িয়ে আছেন অনেকেই। কথাবার্তা শুনে বোঝা গেল, প্রায় সবাইই সমাবেশে যোগ দেওয়ার জন্য এসেছেন। যারা মাঠে রান্না করে খেতে পারেননি তারাই আশপাশের হোটেলগুলোতে ঢুঁ মারছেন।

তেঁতুলতলা হোটেলের মালিকের ছেলে ও ম্যানেজার রুবেল হোসেন জানালেন, বেচাকেনা ভালোই অইতে আছে। দুই দিন ধইরা অনেক মানুষ আসতে আছে। খাওন দিয়ে কুলাইতে পারতে আছি না।

পাশের হোটেলগুলোতেও প্রচুর ভিড়। অনেকেই বাইরে অপেক্ষা করছেন ভেতরে ঢোকার জন্য। নগরীর চকবাজার এলাকায় ঘরোয়া হোটেল কাকলীর মোড়ে রোজ ভিউ, সদর রোডের হোটেলগুলোতে একই অবস্থা।

গির্জা মহল্লার ফুটপাতের দোকানগুলোতে গতকাল থেকেই বেচাকেনা বেড়েছে। শুক্রবার সকাল থেকে চশমা, গরম কাপড়ের দোকানে বিভিন্ন জেলা থেকে আসা মানুষের চাপ। কেউ নতুন সানগ্লাস কিনছেন, কেউ ফুল হাতা টি শার্ট। কেউ নতুন জুতা।

ভান্ডারিয়া যুবদলের কর্মী শাওন জানালেন, তিন বছর পরে শহরে এসেছেন তিনি। তাই কিছু কেনাকাটা করে নিচ্ছেন। শাওন বলেন, ‘বোজেনই তো ভাই, বিরোধী রাজনীতি করি। পুলিশে দাবড়ায়। সমাবেশে আইয়া মনে অইলো একটা জুতা কিনি।’

ফুটপাতে কাপড় বিক্রি করেন লাল মিয়া, কাস্টমারের চাপে খুশি তিনিও। জানালেন, গত দুদিন ধরে বেচাবিক্রি খুবই ভালো। সমাবেশের দিন আরও মানুষের চাপ বাড়বে বলে ধারণা তার।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ঘরোয়া হোটেলে গিয়ে দেখা যায়, নতুন কেউ বসার জন্য একটা চেয়ারও ফাঁকা নেই। কয়েকজন ঘুরছেন খালি হলে বসার জন্য। শুক্রবার দুপুরের পরেও ছিল একই অবস্থা।

বরিশালে শহর জুড়ে ব্যাটারিচালিত রিকশার আধিক্য। সমাবেশ ঘিরে ভারী হয়েছে রিকশাচালকদের পকেটও। নানা প্রান্ত থেকে বঙ্গবন্ধু উদ্যানে আসছেন মানুষ। রিকশাওয়ালাও ব্যাগ বোঁচকা দেখেই বুঝে যাচ্ছেন, যাত্রীর গন্তব্য।

আহাদ মিয়া নামের একজন চালক বললেন, ‘নেবাই, পেত্যকদিন যদি এমনই থাকতে। হ্যালে বালোই অইতে।’সমাবেশস্থল এবং আশপাশ ঘিরে লাগানো হয়েছে বিশাল বিশাল ব্যানারম ফেস্টুন, পোস্টার। সাধারণত বড় রাজনৈতিক কর্মসূচি না থাকলে এমন আকারের বিলবোর্ড প্রয়োজন পড়ে না।

উদ্যানের চারপাশেই স্থানীয় নেতাদের ব্যানার টাঙানো। ছেয়েছে শহরের কিছু এলাকাতেও। এতে জোর পেয়েছে ঝিমিয়ে পড়া ডিজিটাল সাইন ও আর্টের দোকানগুলো।

কীর্তনখোলা সাইন অ্যান্ড প্যানাফ্লেক্সের দুলাল মৃধা জানান, গত সপ্তাহে প্রায় ৪ লাখ টাকার অর্ডার পেয়েছেন তিনি। কবে একসঙ্গে এমন কাজ পেয়েছেন মনে করতে পারছেন না বলেও জানান তিনি।

সমাবেশের মিডিয়া কমিটির সদস্য আবু নাসের মুহাম্মদ রহমত উল্লাহ জানালেন, এত মানুষ একসঙ্গে স্রোতের মত আসছে বরিশালে, কিছু কেনাকাটাতো হবেই।অনেকে হয়তো এখানে বাড়িও থাকতে পারেন না। বিভাগীয় শহরে আসার পরে পরিবারের জন্য কিছু কেনাকাটা করে নিয়ে যাচ্ছেন কর্মীরা।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন

Categories